Breaking News
Home / ক্রিকেট / রিয়াদ, ভুলটা ভাঙার জন্য ধন্যবাদ

রিয়াদ, ভুলটা ভাঙার জন্য ধন্যবাদ

অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত গত ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটের একধরনের পুনর্জন্মই হয়েছে বলা যায়। মাঠে বড় বড় দলগুলোর সাথে একক আধিপত্য, এতগুলো টানা সাফল্য আমাদের ক্রিকেটে আগে কখনো আসেনি।

Loading...

আমার এই কথাটার সাথে হয়তো দ্বিমত করার মত মানুষ বাংলাদেশে খুঁজে পাওয়া যাবে না। একই কথা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। ওই, বিশ্বকাপ দিয়েই যে, ব্যাটসম্যান রিয়াদ নতুন করে জন্ম নিয়েছেন সেটা চোখ বুজে বলে দেওয়া যায়।

আগের রিয়াদ ৬,৭ নম্বরে ব্যাটিং করতে নামতেন। আমার কাছে মনে হতো চোখে মুখে কিংবা শারীরিভাষাতেও আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি আছে। ৪০ ওভারের পরে রিয়াদ যখন ডিফেন্স করত, সত্যি বলছে আমার বিরক্তিই লাগত।
প্রথমে ২০-২২ বলে রিয়াদের রান থাকত ১০ কী ১২। তারপর দুই একটা চার মেরে ডেথ ওভারে ৭০+ স্ট্রাইকরেটে ব্যাটিং করে যেত আউট হয়ে যেতেন। খুব বড় পারফরমারদের একজন হিসেবে তাকে খুব কমই দেখেছি।

Loading...

এশিয়া কাপের ফাইনালে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬ বলে ৯ রানের সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে যখন ধুকছিল বাংলাদেশ তখনও রিয়াদের অসহায়ত্ব টের পেয়েছিলাম। সলিড শট না খেলে স্কুপ কিংবা প্যাডেল সুইপ খেলছিলেন, নিজে স্ট্রাইক ধরে না রেখে লেট অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের স্ট্রাইকে পাঠাচ্ছিলেন বারবার। ওই অ্যাপ্রোচটা মেনে নিতে পারিনি। সত্যি বলতে, অনেক কটু কথাও বলেছিলাম।

সেই রিয়াদ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপে রেকর্ড গড়া এক সেঞ্চুরি করে বসলেন। ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজেকে নিয়ে গেলেন ইতিহাসের পাতায়। ঠিক এর পরের ম্যাচেই নিউজিল্যান্ডে সুইংয়ের বিষে ভরা উইকেটে ১২৮ রানে অপরাজিত এক ইনিংস; ভাবা যায়? নিজের চোখকেও সেদিন বিশ্বাস করতে পারিনি। বার বার, মনে হচ্ছিল ভুল দেখছি না তো।
এর পরবর্তী সময়ে একটু একটু করে বুঝেছি। টেস্ট, ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টি; যে কোনো ফরম্যাটে এখন বাংলাদেশের তো বটেই গোটা ক্রিকেট বিশ্বেরও সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন আমাদের মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রিয়াদ আবারও আমার পুরনো ভুল ধারণাটা ভেঙে দিলেন আরেকবার। প্রতিদিন উইকেটে আসছেন; হাত খুলে খেলছেন; ভিন্ন-ভিন্ন পরিস্থিতিতে; ভিন্ন-ভিন্ন পজিশনে নিজেকে দারুণ ভাবে মানিয়ে নিচ্ছেন। ২০০-এর ওপর স্ট্রাইক রেটে রান করছেন। কখনও একেবারে কপিবুক ব্যাট চালাচ্ছেন, সময়ের চাহিদায় ক্রিকেট ব্যাকরণ ভুলে হয়ে উঠছেন আধুনিক ‘ইম্প্রোভাইজড’ ব্যাটসম্যানদের একজন।

একস্ট্রা কভারের ওপর দিয়ে জায়গায় দাড়িয়ে ছয় মারছেন। কখনও পুল,হু ক করে বল সেকেন্ডের ব্যবধানে গ্যালারিতে নিয়ে যাচ্ছেন। স্পিন বোলিংয়ের সামনে এসে লং অনের ওপর দিয়ে মিডিয়া প্রান্তে ফেলছেন। এটা কোন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ!
সেই মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আজও চলছেন সমগতিতে। অধিনায়ক হিসেবেও তিনি অসাধারণ। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) গত আসরে অল্পের জন্য দল বরিশাল বুলসকে শিরোপা এনে দিতে পারেননি। এবার, খুলনা টাইটান্সকে দিয়ে সেই স্বপ্ন পূরণের অপেক্ষায় আছেন।

বদলে যাওয়া রিয়াদের বদলে যাওয়া ব্যাটিং দেখা যাচ্ছে বিপিএলে। চলতি আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এই রান সংগ্রাহক ৩৬.৯০ গড়ে ১২ ম্যাচে করেছেন ৩৬৯ রান। আছে দুটি হাফ সেঞ্চুরি। তার ব্যাটে, তার অধিনায়কত্বের হাত ধরে এগোচ্ছে খুলনা টাইটান্স। এমন দিন দেখবো বছর দুয়েক আগেও ভাবতে পারিনি।

ভুলটা ভাঙার জন্য ধন্যবাদ, রিয়াদ!

লিখেছেন-ঝুটন সরকার

Comments

comments

Check Also

নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নিলেন সাকিব (সরাসরি ভিডিও)

স্মিথকে বোল্ড করে নিউ জিল্যান্ড একাদশের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নিলেন সাকিব। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত …